শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০৬:৩৫ অপরাহ্ন
২৫ বৈশাখ, ১৪২৮

সংবাদ শিরোনাম:
আট নমুনায় ৬ জনের মধ্যেই ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট গৌরনদীতে পাকা ধানে আগুন গৌরীপুরে অভ্যন্তরীণ বোরো ধান চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু আল-আকসায় মুসুল্লীদের ওপর হামলা ইসরাইলী বর্বরতার বহিঃপ্রকাশ পাওনা ৫০০ টাকা চাইতে গিয়ে বন্ধুর হাতে খুন ভালোবাসা কী ভোলায় অবৈধ স্পিডবোটের বাণিজ্য, ঝুঁকি নিয়ে চলাচল যাত্রীদের বরিশালে পোশাক বাজারে উপচে পরা ভিড়, নেই স্বাস্থ্যবিধির বালাই তাহিরপুরে গ্রামপুলিশকে হত্যা, দুই ঘাতক গ্রেপ্তার সুনামগঞ্জে সানি সরকার হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবীতে মানবন্ধন গৌরনদীতে সরকারি ওষুধ পাচার দুই মাসেও রিপোর্ট জমা দিতে পারেনি তদন্ত কমিটি মঠবাড়িয়ায় ১ হাজার পরিবারে ঈদ উপহার প্রদান ছুটে আসছে চীনা রকেটের খণ্ডাংশ: ধরা পড়ল ইতালীয় বিজ্ঞানীর ক্যামেরায় দেশে করোনাভাইরাসের ভারতীয় ধরন শনাক্ত নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ধানের হাটে ঢুকে পড়ল ট্রাক, নিহত-২ দেশে করোনায় আরও ৪৫ জনের মৃত্যু রমজানে যে ৫ কারণে খাবেন আখের রস করোনা সংক্রমণের মধ্যেই ভারতে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে ‘ব্ল্যাক ফাঙ্গাস’ যৌনাঙ্গে ইনফেকশন হলে কী করবেন? কাউখালীতে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তার নগদ অর্থ প্রদান
Dr. Ali Hasan
Dr. Jahidul Islam
করোনা সংক্রমণ এড়াতে কী খাবেন কী খাবেন না

করোনা সংক্রমণ এড়াতে কী খাবেন কী খাবেন না

লাইফস্টাইল ডেস্ক।।
করোনার দ্বিতীয় ঢেউ প্রতিদিন বিপজ্জনক হয়ে উঠছে। আগের তুলনায় বাড়ছে সংক্রমণ। করোনা সংক্রমণ থেকে বাঁচতে বারবারই সতর্ক থাকতে বলছেন বিশেষজ্ঞরা। করোনা সংক্রমণ থেকে বাঁচতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর বিকল্প নেই। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, সুষম খাদ্য গ্রহণ করলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়তে থাকে। ফলে, সংক্রামক রোগগুলির ঝুঁকি কম থাকে। তাই করোনাকে মোকাবেলা করতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে হবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, করোনা থেকে বাঁচতে ভিটামিন, খনিজ, ফাইবার, প্রোটিন এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে।

করোনাকালে যেসব খাবার খাওয়া ঠিক নয় –
১. অতিরিক্ত লবণ গ্রহণ করলে মানুষ খুব দ্রুত অসুস্থ হয়ে পড়ে। করোনাকালে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে প্রতিদিন ৫ গ্রামের বেশি লবণ না খাওয়াই শ্রেয়। খাদ্যতালিকায় অ্যাভোকাডো, মাছ, অলিভ অয়েল, মাংস, নারকেল, পনির এবং ঘি রাখার চেষ্টা করুন।

২. প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন। এর ফলে শরীরে পানির কোনও অভাব হবে না এবং দেহের তাপমাত্রাও নিয়ন্ত্রণ করা হবে। যতটা সম্ভব পানীয়তে চিনির ব্যবহার এড়িয়ে চলুন। বিশেষভাবে প্যাকেটজাত ফল এবং শাকসবজি ব্যবহার করার সময়, লেবেলে পরিমাণ মতো চিনি এবং লবণের পরিমাণটি পড়তে ভুলবেন না।

কী খাবেন –
১. বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, সপ্তাহে একবার বা দু’বার রেড মিট খাওয়া যেতে পারে। এ ছাড়া, মাছ, ডিম এবং দুধের সঙ্গে ১৬০ গ্রাম মাংস, মটরশুটি খাবার খাওয়া উচিত।

২. শস্য এবং বাদাম ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করে। যে কেউ যদি ভুট্টা, ওট, গম, বাদামি চাল বা আলুর মতো ১৮০ গ্রাম শস্য খায় তবে সে সংক্রমণ থেকে রক্ষা পাবে। একই সঙ্গে, প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় ফল এবং শাকসবজি ছাড়াও বাদাম, নারকেল, পেস্তা জাতীয় বাদামও অন্তর্ভুক্ত করার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুসারে, করোনা সংক্রমণ এড়ানোর জন্য পেয়ারা, আপেল, কলা, রুটবেরি, আঙুর, আনারস, পেঁপে, কমলা জাতীয় খাবার রোজ দু’কাপ পরিমাণে খাওয়া উচিত। সবজির মধ্যে সবুজ বেল পেপার, মরিচ, রসুন, আদা, কলা, ধনে, কাঁচা মরিচ, ব্রকলি খেতে হবে। চিনি, লবণ এবং ফ্যাটযুক্ত খাবারের চেয়ে বেশি করে তাজা ফল এবং শাকসবজি খাওয়া উচিত। এগুলি প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে খুব উপকারী।

সঠিক খাবার গ্রহণ ছাড়াও করোনা এড়াতে সবার স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন পদ্ধতি অনুসরণ করা উচিত। ব্যায়াম, মেডিটেশন এবং পর্যাপ্ত ঘুম প্রতিরোধ ব্যবস্থা শক্তিশালী করবে।

দ্রুত নিউজ পেতে নিচের লাইক বাটনে ক্লিক করে সি ফাস্ট করে রাখুন
নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

royal city hospital



© All rights reserved © 2019 rupalibarta.com
Developed By Next Barisal