Menu
Menu

কাবুলে জুমার নামাজের সময় মসজিদে বোমা হামলা, ইমাম নিহত

Share on facebook
Share on google
Share on twitter

আন্তর্জাতিক ডেস্ক।।

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের পশ্চিম অংশে অবস্থিত একটি মসজিদে জুমার নামাজ চলাকালীন বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার (১২ জুন) দুপুরের ওই হামলায় কমপক্ষে চারজন নিহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। খবর আলজাজিরা।

আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ‘জুমার নামাজ চলাকালীন শের শাহ সুরী নামের ওই মসজিদে বিষ্ফোরণের ঘটনা ঘটে। হামলায় কমপক্ষে চারজন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে জুমার নামাজের নেতৃত্ব দেওয়া মসজিদটির ইমাম আজিজুল্লাহ মোফলেহও রয়েছেন।’

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র তারিক আরিয়ান বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল ঘিরে রেখে আহতদের অ্যাম্বুলেন্সের করে পাশের হাসপাতালগুলোতে পাঠানোয় সাহায্য করছে। কোনো সশস্ত্র গোষ্ঠী এখনো হামলার দায় স্বীকার না করলেও এই মাসের শুরুতে আরেকটি মসজিদে হামলার কথা জানায় ইসলামিক স্টেট সম্পৃক্ত একটি গোষ্ঠী০।

জুনের শুরুতে মসজিদে হামলা চলানো ইসলামিক স্টেট সংশ্লিষ্ট ওই সশস্ত্র গোষ্ঠীর সদর দফতর আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলের নানগারহার প্রদেশে।

কাবুলভিত্তিক আফগানিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তা বিশ্লেষক হাবিব ওয়ারদিক আলজাজিরাকে বলেছেন, ‘খেয়াল করার বিষয় হচ্ছে, যখনই দেশের শান্তি প্রক্রিয়া নিয়ে কোনো ধরনের আলোচনা কিছুটা হলেও একটা গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে চলে যায়, তখনই দেশজুড়ে এসব হামলার ঘটনা ঘটে।’

তিনি বলেন, ‘গত সপ্তাহে কাবুলে একটি মসজিদে হামলার দায় স্বীকার করলো আইএস। কিন্তু একদিনে এ ধরনের হামলার খবর আসছে অপর দিকে সরকার সংবাদ সম্মেলন করে জানাচ্ছে তারা দেশ থেকে আইএসকে নির্মূল করেছে। যদি নির্মূলই হয় তাহলে এরকম ‘সফিসটিকেটেড’ হামলা তারা কীভাবে করছে।’

সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে আফগানিস্তানে হামলা সহিংসতার ঘটনা বেড়েছে। বেশিরভাগ হামলার দায় স্বীকার করেছে আইএস সংশ্লিষ্ট গোষ্ঠী। গত মাসে কাবুলের এক হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে হামলা চালালে দুই নবজাতক কয়েকজন মাসহ অন্তত ২৪ জনের প্রাণহানি ঘটে।

গত ৩০ মে কাবুল সাংবাদিক নিয়ে যাত্রা করা এক বাসে হামলা চালায় আইএস সংশ্লিষ্ট গোষ্ঠী। হামলায় দুজন নিহত হয়। এছাড়া গত মাসেই সরকার সমর্থিত এক নেতৃস্থানীয় ব্যক্তির জানাজায় হামলার ঘটনায় ৩৫ জন নিহত হয়। ওই হামলার দায়ও স্বীকার করেছিল আইএস সংশ্লিষ্ট গোষ্ঠীটি।

সর্বশেষ