Menu
Menu

প্রেমিকের সঙ্গে ঘুরতে গিয়েছিল কলেজছাত্রী, আটকে ধর্ষণ করলো বখাটেরা

Share on facebook
Share on google
Share on twitter

কাঠালিয়া প্রতিনিধি।।
ঝালকাঠির কাঠালিয়ার পটিখালঘাটায় প্রেমিককে আটকে রেখে প্রেমিকাকে ধর্ষণ ও প্রেমিক যুগলের পরিবারের কাছে মুক্তিপণ দাবির ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার (২৮ মে) রাতে উপজেলা পাটিখালঘাটা থেকে কলেজ ছাত্রী প্রেমিকা আসমা খাতুন (১৯), প্রেমিক রিমন ওরফে তানভীর (১৭) ও তার বন্ধু রায়হান (১৭) কে উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

ওই ঘটনার সাথে জাড়িত বখাটে রিপন (১৭), রাকিব(১৭), হোসনেয়ারা (৩৮), তানিয়া(২০) বেল্লাল (২৩), আক্কাস (২৬) গ্রেফতার করা হয়েছে। ভিকটিম আসমা খাতুন কাঠালিয়া থানায় ১০ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত আরো ৩/৪ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন। তবে মুলহোতা ও মামলার ১নং আসামী উপজেলার পাটিখালঘাটা গ্রামের সালাম হাওলাদারের পুত্র ধর্ষক জনি(২৩) একই গ্রামের রুবেল(২৫), লিয়ন (১৭) ও রাব্বি (১৮)কে গ্রেফতার করতে পারেনি।

থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পটুয়াখালীর কলাপাড়ার মাছুয়াখালী গ্রামের মৃত্যু ওবায়দুল হাওলাদারের ছেলে রিমন ওরফে তানভীর হাওলাদারের সাথে পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার উত্তর কলারদোয়ানিয়া গ্রামের মেয়ে আসমা খাতুনের ফেইসবুকে ১বছর পূর্বে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রেমের টানে ২৬ মে মঙ্গলবার রিমন ও তার বন্ধু রায়হানকে নিয়ে মটরসাইকেলে প্রেমিকা আসমা আক্তারের সাথে নাজিরপুরের বৈঠাঘাটা ব্রিজের কাছে দেখা করে তাকে নিয়ে ভান্ডারিয়া-কাঠালিয়া হয়ে বরগুনার পাথরঘাটার উদেশ্যে রওনা হয়। ভুলক্রমে কাঠালিয়া উপজেলার পাটিখালঘাটায় চলে গেলে মাঝের পুলনামক স্থানে বখাটে জনির নেতৃত্বে ৫ জন মিলে তাদের মটরসাইকেল থামিয়ে প্রেমিক রিমন ও তার বন্ধু রায়হানকে ভয়ভিতি দেখিয়ে অন্যত্র নিয়ে যায় এবং মুলহোতা জমি প্রেমিকা আসমা আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদের অযুহাতে পার্শ্ববর্তী ফারুক জমাদ্দারের বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করে।

পরে তাদেরকে স্থানীয় হোসনেয়ারা বেগমের বাড়িতে আটকে রেখে তাদের পরিবারের কাছে লক্ষাধিক টাকা মুক্তিপণ দাবি করে বখাটে চক্রটি। আসমার পরিবার টাকা দিতে রাজি না হলেও প্রেমিক রিমনের পরিবার ৩০ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে পাঠিয়ে দেয় এবং বিষয়টি গোপনে পুলিশকে জানায়। পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার চেঁচরী এলাকার একটি বিকাশের দোকান থেকে জনির গ্যাংয়ের দুই জনকে আটক করে। তাদের তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে পাটিখালঘাটা হোসনেয়ারার বাড়ি থেকে ভিগটিমসহ ৩জনকে উদ্ধার করে। এসময় জনির গ্যাংয়ের আরো চার জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

থানা অফিসার ইনচার্জ পুলুক চন্দ্র রায় জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমরা কলেজ ছাত্রী ও তার প্রেমিক রিমন ওরফে তানভীর এবং বন্ধু রায়হানকে উদ্ধার করতে সক্ষম হই। ভিগটিমকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ঝালকাঠি সিভিল সার্জন অফিসে পাঠিয়েছি। এবং ঘটনার সাথে ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সর্বশেষ