Menu
Menu

বাড়ছে গরম, তাপপ্রবাহ চলবে আরও দু-তিন দিন

Share on facebook
Share on google
Share on twitter

অনলাইন ডেস্ক।।
বাড়তে শুরু করেছে তাপমাত্রা। তীব্র গরমে হাসফাস অবস্থা। গত দুই সপ্তাহে প্রায় ৬ ডিগি সেলসিয়াস তাপমাত্রা বেড়েছে। বৃষ্টি না হলে এটি আরও বাড়ার আশঙ্কা প্রকাশ করছেন আবহাওয়াবিদরা। খুলনা ও বরিশাল বিভাগসহ ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, কিশোরগঞ্জ, ময়মনসিংহ, রাজশাহী, পাবনা, ফেনী, নোয়াখালী অঞ্চলগুলোর ওপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। আগামী দু’দিন এই তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

২ মে যেখানে রাজধানীর তাপমাত্রা ছিল ২৮. ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ৭ মে তা বেড়ে দাঁড়ায় ৩০.৭ ডিগ্রি এবং ১৩ মে তা আরও বেড়ে দাঁড়ায় ৩৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

একইভাবে ২ মে ময়মনসিংহে ছিল ৩০.৮। আজ বুধবার (১৩ মে) সেই তাপমাত্রা বেড়ে হয়েছে ৩৬.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। চট্টগ্রামে ২ মে ছিল ৩১ .৪ ডিগ্রি, ৭ মে ছিল ৩২.৭ ডিগ্রি এবং তা আরও বেড়ে এখন ৩৩.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস হয়েছে। সিলেটে ২ মে ছিল ৩৩.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, এরপর ৭ মে তাপমাত্রা কিছুটা কমলেও আজ বেড়ে হয়েছে ৩৪.৭ ডিগ্রি। রাজশাহীতে ২ মে ছিল ৩২.২ ডিগ্রি, ৭ মে ৩২ ডিগ্রি এবং আজ তা বেড়ে হয়েছে ৩৬.২ ডিগ্রি, রংপুরে বলেন ভাগে ২ মে ছিল ৩১.৩ ডিগ্রি, ৭ মে কিছুটা কমে হয় ৩০.৮ ডিগ্রি এবং এরপর ১৩ মে তা আবার বেড়ে হয়েছে ৩৫ ডিগ্রি, খুলনায় ২ মে ছিল ৩৩ ডিগ্রি, ৭ মে কমে গিয়ে হয়েছিল ৩২ ডিগ্রি এবং আজ তা আবার বেড়ে হয়েছে ৩৬.৫ ডিগ্রি এবং বরিশালে ২ মে ছিল ৩১.৫ ডিগ্রি, ৭ মে ছিল ৩০.৩ ডিগ্রি এবং আজ বেড়ে হয়েছে ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

আবহাওয়াবিদ নাজমুল হক বলেন, ‘দেশের অনেক এলাকায় এখন তাপপ্রবাহ বইছে। এটি আরও দুই-তিনদিন থাকতে পারে। খুলনা ও বরিশাল বিভাগসহ ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, কিশোরগঞ্জসহ বেশ কিছু এলাকার ওপর দিয়ে এই তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। আপাতত মৃদু তাপপ্রবাহ হলেও এই তাপমাত্রা আরও কিছুটা বাড়তে পারে। তবে ঝড় বৃষ্টিরে পূর্বাভাস আছে। বৃষ্টি হলে তাপমাত্রা কিছুটা কমতে পারে।’

আবহাওয়াবিদ হাফিজুর রহমান জানান, দেশের দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে একটি লঘুচাপ অবস্থান করছে। এই কারণেই বাড়ছে তাপমাত্রা। তাপমাত্রা আরও কিছুটা বেড়ে দেশের কোনও কোনও অঞ্চলে তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে যাওয়ার আশঙ্কাও আছে।

তাপপ্রবাহের পাশাপাশি ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং ঢাকা, রাজশাহী, খুলনা ও রংপুর বিভাগের দু’এক জায়গায় এবং কুমিল্লা ও নোয়াখালী অঞ্চলে অস্থায়ী ভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়া এবং বিজলি চমকানোসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্য অঞ্চলের আকাশ অস্থায়ী ভাবে মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

এদিকে দেশের দীর্ঘ মেয়াদি পূর্বাভাসে বলা হয়, চলতি মাসে দেশের উত্তর ও উত্তর পশ্চিমাঞ্চলে এক তীব্র তাপপ্রবাহ অর্থাৎ প্রায় ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি তাপমাত্রা বয়ে যেতে পারে। অন্য এলাকাগুলোতে ১ থেকে ২ ডিগ্রি মৃদু তাপপ্রবাহ অর্থাৎ ৩৬-৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস অথবা মাঝারি ৩৬-৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার তাপপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, করোনার কারণে এ’কদিন সব বন্ধ থাকলেও গত এক সপ্তাহে দেশের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বৃদ্ধি পেয়েছে। গার্মেন্ট কারখানা খুলেছে, গণপরিবহন না থাকলে রাস্তায় অন্যান্য পরিবহনের সংখ্যায় বেড়েছে। এতে বেড়ে গেছে কার্বন নিঃসরণের পরিমাণও। এর প্রভাবেও কিছুটা দেশের আবহাওয়ার ওপর পড়েছে। বেড়েছে তাপমাত্রা। এছাড়া এই মৌসুমে এই ধরনের তাপপ্রবাহ স্বাভাবিক বলে মনে করছেন আবহাওয়াবিদরা।

সর্বশেষ