Menu
Menu

মঠবাড়িয়ায় স্বামীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে নিজের শরীরে আগুন দিলেন গৃহবধূ

Share on facebook
Share on google
Share on twitter

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি।।
পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় স্বামীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে রহিমা বেগম (৩০) নামে এক গৃহবধূ নিজের শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গৃহবধূ রহিমা বেগম উপজেলার টিকিকাটা ইউনিয়নের ঘোষের টিকিকাটা গ্রামের ইমাম হোসেনের স্ত্রী। বৃহস্পতিবার (১১ জুন) দিনগত রাতে উপজেলার টিকিকাটা ইউনিয়নের ঘোষের টিকিকাটা গ্রামে এ হৃদয় বিদারক ঘটনা ঘটে।

গুরুতর আহত ওই গৃহবধুকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তির পর অবস্থার অবনতি ঘটলে রাতেই বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এ ঘটনার পর স্বামী পলাতক রয়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানাযায়, বৃহস্পতিবার সকালে পারিবারিক বিষয় নিয়ে স্বামীর সাথে ঝগড়া করে রহিমা প্রথমে ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা কওে ব্যার্থ হয়। ঐ দিন রাতে রহিমা আবার নিজের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। এ সময়ে পরিবারের লোকজন গৃহবধূ রহিমা বেগমকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি হলে বৃহষ্পতিবার রাতেই তাকে বরিশাল শেবাচিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।
মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক সহকারী সার্জন ডা. রাজু চন্দ্র সরকার জানান, আগুনে গৃহবধূর শরীরের মূখমন্ডলসহ প্রায় ৬০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়েছে।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাসুদুজ্জামান জানান, খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। থানায় এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সর্বশেষ