Menu
Menu

যে কারণে হংকং থেকে কর্মী সরিয়ে নিচ্ছে নিউ ইয়র্ক টাইমস

Share on facebook
Share on google
Share on twitter

গণমাধ্যম ডেস্ক।।
হংকং থেকে কিছুসংখ্যক কর্মীকে সিউলে সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমস কর্তৃপক্ষ। হংকংয়ে চালু হওয়া নতুন নিরাপত্তা আইন নিয়ে উদ্বেগ জানিয়ে এ সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা জানিয়েছে তারা।

সম্প্রতি স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল হংকংয়ে বিতর্কিত জাতীয় নিরাপত্তা আইন চালুর উদ্যোগ নেয় চীনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টি। এই আইনে দেশদ্রোহিতা, বিচ্ছিন্নতা এবং রাষ্ট্রদ্রোহিতা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এর অধীনে হংকংয়ের আইন প্রণেতাদের বাদ দিয়েই এসব অপরাধে অভিযুক্তদের সাজা দেওয়ার সুযোগ পাবে চীনা কর্তৃপক্ষ। এতে স্বায়ত্তশাসন খর্বের আশঙ্কায় বিক্ষোভ শুরু করে হংকংয়ের বাসিন্দারা। তবে সে বিক্ষোভ উপেক্ষা করেই বিতর্কিত আইনটিতে স্বাক্ষর করেন চীনা প্রেসিডেন্ট।

চীনের মূল ভূখণ্ডে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো প্রায়ই বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতার শিকার হয়ে থাকে। এতোদিন হংকং ছিল এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম। তবে নিউ ইয়র্ক টাইমস-মনে করছে, নতুন নিরাপত্তা আইনের কারণে শহরটির সংবাদ প্রতিষ্ঠান ও সংবাদকর্মীদের কাজের ক্ষেত্রে এখন অস্থিতিশীলতা ও অনিশ্চয়তা তৈরি হবে। এরইমধ্যে তাদের বেশ ক’জন কর্মী ওয়ার্ক পারমিট নিয়ে ঝামেলা পোহাচ্ছেন। এমন অবস্থায় কর্মীদের হংকং থেকে সরিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সংবাদ প্রতিষ্ঠানটি।

নিউ ইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, রিপোর্টাররা হংকং-এ থেকে যাবেন, তবে ডিজিটাল সম্পাদনার দায়িত্বে থাকা দলটিকে ধীরে ধীরে সরিয়ে নেওয়া হবে।

কর্মীদের কাছে নিউ ইয়র্ক টাইমস-এর পাঠানো এক চিঠিতে বলা হয়, ‘হংকংয়ে চীনের চালু করা নতুন জাতীয় নিরাপত্তা আইনের কারণে আমাদের কার্যক্রম ও সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে অনেক অনিশ্চয়তা তৈরি করবে।’

সর্বশেষ